আজীবন জনগণের পাশে থেকে সেবা করে যেতে চাই

প্রতিবেদক : এমএন /আর
প্রকাশিত: ৩১ অক্টোবর, ২০১৮ ৫:০০ অপরাহ্ণ

মোঃ মোস্তফা কামাল: আজীবন জনগণের পাশে থেকে সেবা করে যেতে চাই। দল মত নির্বিশেষে সকলের ভালবাসা পেতে চাই। এ লক্ষ্যে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে তার জন্ম।

কর্মজীবন শুরু করেছেন মানুষ গড়ার কারিগর হিসেবে। বৃহত্তর পরিসরে সেবা করার জন্য প্রবেশ করেন রাজনীতিতে। নানা ঘাত-প্রতিঘাত চড়াই-উতরাই পেরিয়ে জনগণের কাছে আজ তিনি জননেতা হিসেবে পরিচিতি অর্জন করেছেন।

প্রথমে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করার পর নির্বাচিত হন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে। উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে শপথ গ্রহণ করার পর থেকে দল মত নির্বিশেষে দলকে সু-সংগঠিত করে জনগণের সেবক হিসেবে কাজ করে আস্থা অর্জন করেছেন। জনগণ আজ তাকে তাদের প্রাণের নেতা হিসেবে গ্রহণ করেছে। একান্ত সাক্ষাতকারে একথাগুলো বলেছেন এ প্রতিবেদকের সাথে।
মাষ্টার আলতাফ হোসেন হাওলাদার বি.এস.সি মনে প্রাণে মুজিব আদর্শের একজন কর্মী।

ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি। হাজার হাজার নেতাকর্মীর আস্থার প্রতীক। জনগণের দুঃখ দুর্দশা লাঘবে এবং সরকারের লক্ষ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে তিনি নিরিলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তার ব্যাক্তিত্ব আর যোগ্যতা এবং রাজনৈতিক দুরদর্শীতার কারণে গণ মানুষের নেতা হিসেবে পরিগণিত হয়েছেন। অর্জন করেছেন ব্যাপক জনপ্রিয়তা। দলকে করেছেন সু-সংগঠিত। পরিণত করেছেন নৌকার ঘাঁটি হিসেবে। সদালাপী, বৃহৎ হৃদয়ের অধিকারী এবং শিক্ষানুরাগী এ ব্যাক্তি রায়পুর রুস্তম আলী ডিগ্রী কলেজের গভর্নিংবডির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে রয়েছেন জড়িত। শিক্ষা বিস্তারে রেখে চলেছেন ব্যাপক অবদান।

সরকারী উন্নয়নের পাশাপাশি ব্যাক্তিগত উদ্যোগে রাস্তাঘাট, ব্রীজ-কালভাটসহ দৃশ্যমান অনেকগুলো উন্নয়ন করেছেন। বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিল এসোসিয়েশনের সহসভাপতি ও ম্যাকসন্স গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ আলী খোকনের সহায়তা নিয়ে বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ে তদবির করে এনেছেন অনেক বরাদ্দ। করেছেন অবকাঠামোগত অনেক উন্নয়ন। যা চোখে পড়ার মতো। মেঘনা নদীর পাড়ে গড়ে তুলেছেন মিনি পর্যটন কেন্দ্র। অসংখ্য দর্শনার্থী ভীড় জমায় পর্যটন কেন্দ্রের ঐ ঘাটে। গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে রাস্তাঘাট করেছেন পাকা। মসজিদ, মন্দিরে করেছেন সংস্কার। আর এসব কারণে তিনি জননন্দিত নেতা হিসেবে মানুষের মনি কোঠায় স্থান করে নিয়েছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, ভবিষ্যতে সুযোগ পেলে আরো বৃহত্তর পরিসরে জনগণের সেবা করার ইচ্ছা রয়েছে। যতদিন থাকবো ততদিন সততা, নিষ্ঠা ও নির্লোভহীনভাবে দায়িত্ব পালন করে যাব। আজীবন জনগণের সেবা করে মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিতে চাই। এ জন্য দলমত নির্বিশেষে সকল জনগোষ্ঠীর সার্বিক সহযোগীতা কামনা করেছেন তিনি। সুখে, দু:খে বিপদে আপদে মানুষের পাশে থেকে সেবা করবেন বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করেন।