লক্ষ্মীপুরে যুবলীগ নেতা নোমান আত্মগোপনে !

প্রতিবেদক : এমএন /আর
প্রকাশিত: ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ৮:৩০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: লক্ষ্মীপুর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল নোমান আত্মগোপনে রয়েছেন বলে গুঞ্জন উঠেছে।

ক্যাসিনো সংক্রান্ত বিষয়ে যুবলীগ নেতাদের গ্রেফতারের পর থেকে নোমানের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না। শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ধরে তার মোবাইলফোনসেট বন্ধ রয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক আইডিও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

বরিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় প্রতিবেদনটি লেখা পর্যন্ত তাকে মোবাইল ফোন ও ফেসবুকে পাওয়া যায়নি।


এদিকে জেলাব্যাপী গুঞ্জন চলছে, নোমান আত্মগোপনে রয়েছেন। যাদের সাথে সবসময় তার যোগাযোগ ছিল তারাও এখন সন্ধান দিতে পারছেন না।


বিষয়টি তদন্ত করলে লেনদেনের ভয়াবহ তথ্য বেরিয়ে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। সম্প্রতি তিনি ৩৫ লাখ টাকা মুল্যের হোন্ডা কোম্পানির সাদা রঙের একটি ভেজেল জীপ কিনেন।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, নোমান কেন্দ্রীয় যুবলীগের দফতর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমানের ঘনিষ্ট লোক ছিল।

অভিযোগ রয়েছে, ঘনিষ্ট ও বিশ^স্ত হওয়ায় নোমানের মাধ্যমে দেশের বিভিন্নস্থানের কয়েকটি জেলা ও উপজেলা কমিটি দেওয়ার নামে আনিস বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এক্ষেত্রে নোমানের ব্যাংক হিসাব নম্বর ব্যবহার করা হয়।

ক্যাসিনো সংক্রান্ত বিষয়ে গ্রেফতারের পর থেকে কাজী আনিসকে খুঁজছে পুলিশ। কিন্তু তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি আত্মগোপনে কিংবা দেশ ত্যাগ করেছেন। তার আস্থাভাজন হওয়ায় যুবলীগ নেতা নোমানও একই পথে হেটেছেন।


আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, দুর্নীতি, মাদক আর চাঁদাবাজি বিরোধী অভিযানে পুলিশ-র‌্যাবের হাতে যুবলীগ নেতা খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া ও জি কে শামীম গ্রেফতার হয়েছেন। এরপর থেকেই যুবলীগ নেতা কাজী আনিস লোক চক্ষুর অন্তরালে রয়েছেন। এখনো পর্যন্ত তার সন্ধান পাওয়া যায়নি।

একই সঙ্গে লক্ষ্মীপুরের যুবলীগ নেতা নোমানের সন্ধানও পাওয়া যাচ্ছে না। নোমান লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার বশিকপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা।


নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক লক্ষ্মীপুর জেলা যুবলীগের কয়েকজন নেতা বলেন, নোমানের সাথে আমাদের সবসময় যোগাযোগ হয়। গত কয়েকদিন ধরে তাকে মোবাইলফোনসেটে কল করে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি কোথায় রয়েছেন তা বলা মুশকিল।


এ বিষয়ে জানতে রবিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে জেলা যুবলীগের সভাপতি একেএম সালাহ্ উদ্দিন টিপুর মোবাইলফোনসেটে কল করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।