বেতন-ভাতা দাবি করায় সংবাদকর্মীদের হুমকি

প্রতিবেদক : এমএন /আর
প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর, ২০১৯ ৫:৩০ অপরাহ্ণ

অষ্টম ওয়েজবোর্ড অনুসারে বেতন, ভাতা দাবি করায় সম্পাদকসহ সকল সংবাদকর্মীদের চাকরিচ্যুত করার হুমকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে দৈনিক খোলা কাগজ’র প্রকাশক আহসান হাবীব লেলিনের বিরুদ্ধে। পত্রিকাটির উপ-বার্তা সম্পাদক শাহিন মানজারুল ইসলাম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক পোস্টে এ কথা জানান।

শাহিন মানজারুল ইসলামের ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘একেবারে শূন্য থেকে শুরু করে এখন অব্যাহত অগ্রগতির পথে দৈনিক খোলা কাগজ। সম্পাদক ড. কাজল রশীদ শাহীন দায়িত্ব নেয়ার পর তার মেধা ও পরিশ্রম এবং আমাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সীমিত লোকবল নিয়েও পত্রিকাকে এ অবস্থানে নিয়ে এসেছি।’

‘অষ্টম ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়নের স্বীকৃতি দিয়ে আমরা সর্বোচ্চ বিজ্ঞাপনী দর অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি। এরপরেও সংবাদকর্মীদের কয়েকমাসের বেতন বকেয়া, তিন বছরের ইনক্রিমেন্টসহ ওয়েজবোর্ডের ন্যায্য সুবিধাদি থেকে সংবাদকর্মিরা বঞ্চিত। গত দুই বছর ধরে মানবেতর জীবনযাপন করছেন এখানকার কর্মীরা।’

‘গত ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সম্পাদকের মাধ্যমে পত্রিকার প্রকাশক আহসান হাবীব লেলিন বরাবর ‘ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়ন, পদোন্নতি, ইনক্রিমেন্ট ও বকেয়া পরিশোধসহ বেতন নিয়মিতকরণ’ দাবিতে সংবাদকর্মিরা আবেদন করেন। মানবিক কারণে সম্পাদক বরাবরই কর্মিদের বেতন-ভাতার বিষয়ে প্রকাশকের নিকট সুপারিশ করে আসছেন। কর্মিদের পক্ষে সম্পাদকের অনড় মনোভাবের কারণে এ ঘটনার পরেই তাকে পত্রিকা থেকে সরানোর জন্য নানা ষড়যন্ত্র শুরু হয়।’

‘সম্প্রতি প্রকাশক মো. আহসান হাবীব লেলিন প্রথমে মোবাইল ফোনে ও গত ২৮ অক্টোবর ২০১৯ তার কার্যালয়ে ডেকে সম্পাদকসহ সিনিয়র ২৩ জনকে চাকরিচ্যুতির হুমকি দেন।’

‘সর্বশেষ ওয়েজবোর্ডের বিধির কথা তাকে স্মরণ করিয়ে দিলে তিনি ভিন্নপথে পরিস্থিতি মোকাবেলার করার জন্য প্রাথমিকভাবে শুধু সম্পাদককে চাকুরিচ্যুত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে একটি সূত্র জানিয়েছে।’

‘এ ঘটনার পর সাংবাদিকদের ডেকে ডেকে ‘খালি হাতে অফিস থেকে বের করে দেয়া’সহ নানা ধরনের হুমকি ও ভয়-ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে। এ অবস্থায় আমরা যেকোনো সময় চাকুরিচ্যুতির শঙ্কায় পড়েছি। চরম নিরাপত্তাহীনতাও বোধ করছি।’

‘উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আমরা ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সভাপতি আবু জাফর সূর্যসহ সাংবাদিক নেতাদের সঙ্গে মৌখিক আলোচনা করেছি। আজ বুধবার সকালে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিকার চেয়ে ডিইউজেকে লিখিতভাবে অবহিত করা হবে।’

‘সংবাদপত্র, টেলিভিশন, অনলাইন মিডিয়ার সব সংবাদকর্মী এবং সমাজের সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে দৈনিক খোলা কাগজকর্মীদের পাশে থাকা এবং ন্যায্য অধিকার আদায়ে সমর্থন দেওয়ার বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।’

‘আতঙ্কগ্রস্ত কর্মীদের পক্ষে- শাহিন মানজারুল ইসলাম’

তবে হুমকির বিষয়টি অস্বীকার করে প্রকাশক আহসান হাবীব লেলিন বাংলা’কে বলেন, ‘তারা আমার কাছে কিছু দাবি-দাওয়া দিয়েছে। কিন্তু আমি ওয়েজবোর্ড সম্পর্কে কিছুই জানি না। আমি জেনে তারপর ওদের সাথে কথা বলবো।’