পুকুর-নদী-খালে গোসল করা যাবে না

প্রতিবেদক : এমএন/ জেইউবি
প্রকাশিত: ২৫ মার্চ, ২০২০ ৩:১৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা আতঙ্কে বাংলাদেশসহ পুরো পৃথিবী। দেশে এখনো পর্যন্ত ৫ জন মারা গেছেন। আক্রান্ত আছেন প্রায় ৪০ জন। সারাদেশে প্রবাস ফেরতসহ হাজার হাজার মানুষ হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে।

আর এই আতঙ্ক নিয়েই মফস্বল ও গ্রামে পুকুর-নদী-খালে গোসল করছে মানুষ। এর থেকে ভাইরাস ছড়ানোর ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। কিন্তু এখনো পর্যন্ত সচেতনতামূলক নির্দেশনাতে পুকুর-নদী-খালে গোসল করতে নিষেধ করা হচ্ছে না। প্রচারণা চালিয়ে দ্রুত এটি নিষিদ্ধ করা প্রয়োজন।

বুধবার (২৫ মার্চ) বেলা ১১ টার দিকে সদর উপজেলার আবিরনগর মাহমদিয়া দাখিল মাদ্রাসা পুকুরে স্থানীয় শিশু-কিশোর-যুবকদের এক সঙ্গে গোসল করতে দেখা যায়। সেখানে কয়েকজনের হাতে করোনা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক লিফলেট চোখে পড়ে।

এসময় এক যুবক ও মাদ্রাসাছাত্র জানায়, তাদের বাড়িতে গোসল করার অন্য কোন ব্যবস্থা নেই। বাড়ির ভেতরের পুকুরে নারীরা সবাই গোসল করে। রান্না-বান্নার ধোঁয়ার কাজও পুকুরের পানি দিয়ে করতে হয়। গ্রামে-গঞ্জে টিউবওয়েলের অভাব রয়েছে। অনিচ্ছা থাকলেও পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার জন্য তাদেরকে পুকুরেই গোসল করতে হয়।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, লক্ষ্মীপুরে ৩ হাজার ৮৫১ জন বিদেশে ফেরত রয়েছে। বুধবার দুপুর পর্যন্ত এ জেলায় ৮০২ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে আছে। তাদেরকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মীদের দিয়ে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। এছাড়া একজনকে সন্দেহজন সদর হাসপাতালের আইসোলেশন বিভাগে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

জানতে চাইলে লক্ষ্মীপুর জেলা সিভিল সার্জন আব্দুল গাফ্ফার বলেন, করোনা আক্রান্ত কোন লোক যদি পুকুর-নদী কিংবা খালে গোসল করে। তার শরীরের ভাইরাসটি পানিতে ছড়িয়ে পড়বে। পরে যারা গোসল করতে যাবেন তাদের শরীরের দ্রুত ভাইরাসটি আক্রমণ করবে। এই মুহুর্তে কোনভাবেই পকুর-নদী কিংবা খালে গোসল করা যাবে না। সবাইকে বাসায় টিউবওয়েল কিংবা পৌরসভার লাইনের পানি দিয়ে গোসল করার জন্য প্রচার প্রচারোনা চালাতে হবে। যার যার অবস্থান থেকে এটি মানুষকে বুঝাতে হবে।

সিভিল সার্জন আরও বলেন, এখনো গ্রামে অনেক কুসংস্কার আছে। এরমধ্যে একটি হচ্ছে, নদীতে গোসল করলে রোগ ধুয়ে মুছে যাবে। এটি গ্রামের মানুষের ভুল ধারণা। তবে পানি থেকে ভাইরাস সবচেয়ে দ্রুত মানুষের শরীরে প্রবেশ করে। গ্রামের মানুষ সেটি বুঝে না। করোনা আতঙ্ক প্রতিরোধে সবাইকে সচেতন হতে হবে। সচেতনতামূলক নির্দেশনার সঙ্গে পুকুর-নদী-খালে গোসল করা বন্ধ করা নিষিদ্ধ করতে হবে।