করোনা আতঙ্ক, লক্ষ্মীপুরে অটোরিকশায় ৬ যাত্রী

প্রতিবেদক : এমএন/ জেইউবি
প্রকাশিত: ২৫ মার্চ, ২০২০ ২:৫৮ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক নিয়েও লক্ষ্মীপুরে রিকশা ও ব্যাটারি চালিত অটোরিকশায় গড়ে ৫-৬ জন করে যাত্রী যাতায়াত করছে। যাত্রীদের মাঝে সচেতনতার বিন্দুমাত্র ছোঁয়া নেই। যদিও জনসমাগম ও সঙ্গরোধ নিষিদ্ধ বলে প্রশাসনের উদ্যোগে জেলার আনাচে কানাচে সচেনতামূলক প্রচারণা চালানো হয়েছে। দোকানপাট ও সরকারি অফিস-আদালত বন্ধ থাকলেও বাজারে উঠতে মানুষ ভুল করেনি।


বুধবার (২৫ মার্চ) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে লক্ষ্মীপুর শহরের কলেজ রোড থেকে উত্তর তেমুহনী পর্যন্ত মানুষের চলাচল চোখে পড়ার মতো ছিল। আর অভ্যন্তরীণ এই সড়কটিতে একেকটি রিকশায় চালকসহ ৪ জন ও অটোরিকশায় ৭-৮ জন করে যাত্রী যাতায়াত করছে। মোটরসাইকেলেও একের অধিক আরোহী দেখা গেছে।


মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) রাতে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে লক্ষ্মীপুরে মুদি, ওষুধের ফার্মেসী ও কাঁচা পণ্যের দোকান ছাড়া বাকি সব বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। করোনা ভাইরাসের পার্দুভাব কমাতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়। কিন্তু মানতে নারাজ এ জেলার অসচেতন ব্যক্তিরা।


এদিকে গতকাল রাতে কিছু দায়িত্বশীল ব্যক্তি তাদের ফেসবুক ওয়ালে লক্ষ্মীপুর জেলাকে লকডাউন করেছে বলে প্রচারণা চালিয়েছেন। যদিও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তেমন কোন উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।


জানতে চাইলে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল বলেন, লকডাউন করার মতো এখনও পরিবেশ সৃষ্টি হয়নি। সেনাবাহিনী এলে ইউএনও, এসিল্যান্ডদের পাশাপাশি ১০ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ইউনিয়ন পর্যন্ত মহড়ায় যাওয়া হবে। হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতেই প্রশাসন সার্বক্ষণিক কাজ করছে।


প্রসঙ্গত, লক্ষ্মীপুরে ৩ হাজার ৮৫১ জন বিদেশে ফেরত রয়েছে। বুধবার দুপুর পর্যন্ত এ জেলায় ৮০২ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে আছে। তাদেরকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মীদের দিয়ে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। এছাড়া একজনকে সন্দেহজন সদর হাসপাতালের আইসোলেশন বিভাগে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।